বিনোদন

সমাধান শেষে অপূর্বর দেয়া চেক পেলেন প্রযোজক শাকিল

সমাধানের জন্য প্রায় ছয় ঘণ্টা ধরে চলা এই বৈঠকে অপূর্ব ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন, অভিযোগকারী প্রতিষ্ঠান আলফা আই স্টুডিওস’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক শাহরিয়ার শাকিল, অভিনয় শিল্পী সংঘের সভাপতি আহসান হাবীব নাসিম, সাধারণ সম্পাদক রওনক হাসান, টেলিভিশন অ্যান্ড ডিজিটাল প্রোগ্রাম প্রডিউসারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (টেলিপাব)-এর সভাপতি মনোয়ার পাঠান ও সাধারণ সম্পাদক সাজু মুনতাসির।

বৈঠক শেষে উভয় পক্ষ সম্মত হয় যে, অভিযোগটি অর্থ আত্মসাৎ বলা হলেও এটি আসলে উভয় পক্ষের মধ্যে কাজের চুক্তি বিষয়ক জটিলতা। তার প্রেক্ষিতে দুই পক্ষই অভিযোগ দায়ের করেন। সেই অভিযোগের সূত্র ধরেই গেল শনিবার গুলশানের নিকেতনের টেলিপ্যাবের অফিসে আনুষ্ঠানিক বৈঠকে বসেন সবাই।

বৈঠক শেষে এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানানো হয়, ‘চুক্তি মোতাবেক উভয় পক্ষই পরিপূর্ণভাবে কার্য সম্পাদন করেননি। চুক্তি অনুযায়ী জিয়াউল ফারুক অপূর্ব ৯টি নাটকে অভিনয় করেছেন এবং বাকি নাটকগুলো আর না করার বিষয়ে একমত হয়েছেন। সেক্ষেত্রে অপূর্বকে বাকি যে নাটক বাবদ অগ্রিম অর্থ দেওয়া হয়েছে তা উভয় পক্ষ সমন্বয় করে নেবেন।

ওইদিন রাতেই টেলি প্যাবের সাধারণ সম্পাদক সাজু মুনতাসির জানান, চুক্তির শর্ত অনুযায়ী নাটকে অভিনয় না করে নেওয়া বাড়তি অর্থ অপূর্ব টেলি প্যাবের মাধ্যমেই ফেরত দেবেন। 

অবশেষে সেই অর্থের চেক ফেরত দিয়েছেন অপূর্ব। আজ দুপুরের পর টেলি প্যাবের অফিস থেকে চেকটি সংগ্রহ করেন প্রযোজক শাহরিয়ার শাকিল। টেলি প্যাবের সভাপতি মনোয়ার পাঠানের কাছ থেকে চেকটি নেয়ার একটি ছবি ফেসবুকে শেয়ার করে শাকিল লেখেন, ‘আমরা বরাবরই বিশ্বাস রেখেছিলাম বিষয়টি টেলিভিশন প্রোগ্রাম প্রডিউসার’স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (টেলিপ্যাব) এবং অভিনয় শিল্পী সংঘ এর মাধ্যমে সঠিক, ন্যায় সম্মত সমাধান হবে। ধন্যবাদ টেলিপাব, অভিনয় শিল্পী সংঘ এবং বন্ধু অপূর্ব।’

এ বিষয়ে শাহরিয়ার শাকিল বলেন, ‘৯ টি নাটকের সম্মানি বাদ দিয়ে বাকি যে টাকা অগ্রিম দেয়া ছিলো সেটার পুরোটা অপূর্ব ফেরত দিয়েছে। আমি তার প্রতি কৃতজ্ঞ। পাশাপাশি টেলিপ্যাব অভিনয়শিল্পী সংঘসহ সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই। সবাই খুব আন্তরিকতার সঙ্গে বিষয়টি দেখেছেন বলেই সুষ্ঠ সমাধান হয়েছে।

এ ঘটনার কারণে অপূর্ব সঙ্গে সম্পর্ক অবনতি হবে কিনা জানতে চাইলে শাকিল বলেন, ‘কেনো সম্ভবনা নেই। কারণ আমরা দু’জনই আগে থেকেই বন্ধু ছিলাম, আছি ও থাকবো। আমার হাউজের অসংখ্য নাটকে অভিনয় করেছে অপূর্ব। সামনে আরও কাজ আমরা একসঙ্গে করবো। এটা একটা ভুল বোঝাবুঝি ছিলো। সেটার অবশান হয়েছে।’

উল্লেখ্য, গত ১৪ মার্চ জনপ্রিয় অভিনেতা জিয়াউল ফারুক অপূর্বর নামে অর্থ আত্মসাৎ, চুক্তি ভঙ্গ ও শিডিউল ফাঁসানোর অভিযোগ উঠেছে। এই অভিযোগ করেছে প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান আলফা আই স্টুডিওস লিমিটেড (আলফা আই)।

অভিযোগে বলা হয়েছিল, ওই প্রতিষ্ঠান থেকে ২৪টি নাটকের জন্য ৫০ লাখ টাকায় চুক্তিবদ্ধ হয়ে মাত্র ৯টি নাটকে কাজ করে ৩৩ লাখ টাকা নিয়ে সব ধরনের যোগাযোগ থেকে বিরত ছিলেন অপূর্ব। এতে প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানটি আর্থিক ক্ষতির মুখোমুখি হয়েছে।

এমন অভিযোগ এনে টেলিভিশন অ্যান্ড ডিজিটাল প্রগ্রাম প্রডিউসারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (টেলিপাব) এবং অভিনয়শিল্পী সংঘের কাছে বিচার চেয়ে লিখিত অভিযোগ করেছিলেন আলফা আইয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শাহরিয়ার করিম ভূঁইয়া (শাহরিয়ার শাকিল)।

আরো দেখুন

সম্পর্কিত সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এছাড়াও পরীক্ষা করুন
Close
Back to top button